Type to search

প্রশাসনের হস্তক্ষেপে নড়াইল পৌর কবরাস্থানকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধের সমাধান

নড়াইল

প্রশাসনের হস্তক্ষেপে নড়াইল পৌর কবরাস্থানকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধের সমাধান

নড়াইল প্রতিনিধি
অবশেষে জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপে আলাদাতপুর পৌর গোরস্থানের পাকা
কবর ভাঙ্গাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট বিরোধের সমাধান হয়েছে। সোমবার (৫জুন) রাত
১০টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দু’পক্ষকে নিয়ে এক বৈঠকে বিষয়টির
একটি সমাধান হয়। বৈঠকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আশফাকুল হক চৌধুরীর
সভাপতিত্বে অংশগ্রহন করেন, পুলিশ সুপার মোসাঃ সাদিরা খাতুন, জেলা পরিষদ
চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, নড়াইল পৌর মেয়র ও জেলা আ’লীগ
সহ-সভাপতি আনজুমান আরা, নড়াইল পৌর নাগরিক কমিটির আহবায়ক জেলা আইনজীবী
সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট হেমায়েত উল্লাহ হিরু প্রমুখ। সিদ্ধান্তের মধ্যে
রয়েছে, ভেঙ্গে ফেলা পাকা কবরগুলোর চিহৃ ঠিক রাখবার জন্য তাদের স্বজনরা
নিজ দায়িত্বে ইট দিয়ে তিন ফুট উচুঁ করবেন। এছাড়া যেসব কবরগুলোতে বাঁশের
বেড়া দেয়া ছিল সেগুলো স্বজনরা পূনরায় বেড়া দিয়ে নিশানা দিবেন। এরপর
পৌরসভার পক্ষ থেকে সমস্ত কবরাস্থানে তিন ফুট মাটি দেওয়ার পর কবরগুলোকে
একই নকশায় পাকাকরণ করা হবে।
পৌরসভা জানায়, নড়াইল-যশোর সড়কের পাশের্^ আলাদাতপুরে পৌরসভার এই
কবরস্থানটিতে কোভিড-১৯ প্রকল্পের আওতায় আলাদাতপুর পৌর গোরস্থান ৮০ লাখ
টাকা ব্যয়ে উন্নয়নমূলক কাজের অংশ হিসেবে পৌর কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি
গোরস্থানের  বাঁধাই করা কবর ভেঙ্গে ফেলাকে কেন্দ্র করে নড়াইল পৌর পরিষদ ও
পৌর নাগরিক কমিটি  মুখোমুখি অবস্থান নেয়। এ সময় প্রশাসনের হস্তক্ষেপে
সংস্কার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। পৌর নাগরিক কমিটির প্রধান দাবি ছিল কবরাস্থান
পূর্বের অবস্থানে ফিরিয়ে আনতে হবে। এ নিয়ে নাগরিক কমিটি একাধিকবার
প্রতিবাদ সভা-সমাবেশ করে। অপরদিকে উন্নয়নমূলক কাজে বাঁধা দেওয়াসহ নাগরিক
কমিটির এসব কাজের প্রতিবাদ জানিয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ। এদিকে আলাদাতপুরবাসীর
একাংশ পরোক্ষভাবে পৌর মেয়রের পক্ষে অবস্থান নিয়ে কবরাস্থানের সামনে
মানববন্ধনের চেষ্টা করলে পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়।
নড়াইল পৌর মেয়র আনজুমান আরা বলেন, কবরে শায়িতদের স্বজনরা নিজ দায়িত্বে
কবরগুলোর চিহৃ ঠিক রাখবার জন্য ইট-বালু-সিমেন্ট দিয়ে তিন ফুট উচুঁ করবেন।
পৌরসভার পক্ষ থেকেও সমস্ত কবরাস্থানে তিন ফুট মাটি দেওয়া হবে। এরপর
কবরগুলোকে একটি ডিজাইনে পাকা করা হবে।
সভায় জেলা  প্রশাসক মোহাম্মদ আশফাকুল হক চৌধুরী নড়াইলের উন্নয়ন যাতে
বাঁধাগ্রস্থ না হয় সেজন্য নড়াইলবাসীর সহযোগিতা ও আন্তরিকতা কামনা
করেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *