Type to search

পিঁপড়ের বাসায় আগুন লাগাতে নিজেই জ্বলে গেলেন

আন্তর্জাতিক

পিঁপড়ের বাসায় আগুন লাগাতে নিজেই জ্বলে গেলেন

 

অপরাজেয় বাংলা ডেক্স

পিঁপড়ে মারতে গিয়ে নিজেই অগ্নিদগ্ধ হয়ে চরম দুর্ভাগ্যজনকভাবে মারা গেলেন এক ২৭ বছরের তরুণী। তামিলনাড়ুর (Tamil Nadu) বাসিন্দা ওই তরুণী একটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায় কর্মরত ছিলেন। তাঁর শরীরে ৯০ শতাংশই পুড়ে গিয়েছিল। কাগজে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরানোর পরই ঘটে বিপত্তি।

ঠিক কী ঘটেছিল? জানা যাচ্ছে, অতিমারীর জেরে অফিস যাওয়া বন্ধ থাকায় বাড়ি থেকেই কাজ করছিলেন এস সঙ্গীতা নামের ওই তরুণী। কাজ করতে করতেই তাঁর নজরে পড়ে ঘরের কোণে বাসা বেঁধেছে পিঁপড়েরা। তখনই তিনি সিদ্ধান্ত নেন ওই বাসাটি পুড়িয়ে দিতে হবে। সেইমতো কাগজে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন সঙ্গীতা। কিন্তু পিঁপড়ের বাসা পোড়াতে যেতেই পিঁপড়েরা এলোমেলো ছুটতে থাকে। কিছু পিঁপড়ে ওই সঙ্গীতার পায়ে কামড়েও দেয়। তখনই ঘটে বিপত্তি। তিনি তাঁর গায়ে ওঠা পিঁপড়েগুলিকে মারতে যাওয়ার সময় আগুনের কাছেই রেখে যেন কেরোসিনের পাত্রটি। সঙ্গে সঙ্গে আগুন দপ করে জ্বলে ওঠে। তরুণী অগ্নিদগ্ধ হন। তাঁর পরনে পলিয়েস্টার কাপড়ের জামা থাকায় সহজেই আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

তাঁর ভাই এবং প্রতিবেশীরাও সেখানে উপস্থিত হয়ে আগুন নেভাতে চেষ্টা করেন। কিন্তু আগুন ততক্ষণে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় তাঁদের চোখের সামনেই দাউদাউ জ্বলে যান সঙ্গীতা। দ্রুত তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে ওই হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। সঙ্গীতার দেহ ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তি কর্মী সঙ্গীতা তাঁর পরিবারের একমাত্র রোজগেরে ছিলেন। লকডাউনের ধাক্কায় পেশায় গাড়ির চালক তাঁর বাবা বেকার হয়ে পড়েন।

সূত্র, সংবাদ প্রতিদিন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *