Type to search

চৌগাছায় আক্রান্তের সংষ্পর্শে থাকা পরিবারে আরো দুইজনের নমুনায় করোনা পজেটিভ ধরা পড়লো

যশোর

চৌগাছায় আক্রান্তের সংষ্পর্শে থাকা পরিবারে আরো দুইজনের নমুনায় করোনা পজেটিভ ধরা পড়লো

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি
যশোরের চৌগাছায় এবার প্রথম সনাক্ত হওয়া স্কুল ছাত্র কিশোরের (১৩) নানা ও নানী করোনা পজেটিভ হয়েছেন। তারা শহরের ৮ নং ওয়ার্ডের মডেল প্রাইমারী স্কুল পাড়ায় একটি তিনতলা ভবনের ২য় তলায় ওই কিশোরের সাথেই ভাড়া বাসায় অবস্থান করেন। সোমবার বেলা দশটায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এরআগে ২২ এপ্রিল ওই কিশোরের করোনা সনাক্ত হওয়ার তাদের বাড়িটি লকডাউন করা হয়। পরে ২৬ এপ্রিল ওই কিশোরকে চিকিৎসা দেয়া চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার করোনা পজেটিভ হন। শনিবার ওই কিশোরের পরিবারের সবার নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে পাঠানো হয়। সেখানে রবিবারের পরীক্ষায় ওই কিশোরের নানা একটি কোম্পানির মেডিকেল রিপ্রেজেন্টেটিভ ও গৃহিনী নানী করোনা পজেটিভ হয়েছেন।
চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার বলেন প্রথম সনাক্ত হওয়া কিশোরের নানা ও নানী করোনা পজেটিভ হয়েছেন। তিনি বলেন ওই স্কুল ছাত্র সনাক্ত হওয়ার পর তাদের পরিবারকে লকডাউন করা হয়। কিন্তু করোনা উপসর্গ নেই দাবি করে তারা পারিবারিক লকডাউন অমান্য করার কারনেই তার নানা ও নানী করোনা সনাক্ত হয়েছেন। তিনি বলেন গত শনিবার ওই পরিবারের সদস্যদের নমুনা নিয়ে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। আজ তাদের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। এনিয়ে উপজেলা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসারসহ চৌগাছায় মোট ৭ জন করোনা রোগী সনাক্ত হলো।
এরআগে ২২ এপ্রিল চৌগাছার প্রথম রোগী হিসেবে এক নারী ও এক কিশোর সনাক্ত হন। এরপর ২৫ এপ্রিল সনাক্ত হয় এক গর্ভবতী নারীর। ২৬ এপ্রিল সনাক্ত হন প্রথমদিন সনাক্ত নারীর স্বামী এবং প্রথমদিন সনাক্ত কিশোর স্কুলছাত্রকে চিকিৎসা দেয়া চৌগাছা উপজেলা হাসপাতালে জরুরি বিভাগের একজন মেডিকেল অফিসার। সোমবার সনাক্ত হলেন ওই কিশোর স্কুলছাত্রের নানা ও নানী।
এর আগে ওই পরিবারের পক্ষ থেকে বারবার চ্যালেঞ্জ করে সাংবাদিকদের মোবাইল করা হলেও সোমবার ওই কিশোরের মা ও নানার মোবাইলে কল করা হলেও তা কেটে দেয়া হয়।
ওই ওয়ার্ডের পৌর কাউন্সিলর শাহিনুর রহমান শাহিন জানান পরিবারটি লকডাউন মানতেই চাচ্ছেন না। তাদের বাচ্চার করোনা উপসর্গ নেই দাবি করে তারা আমার সাথে পর্যন্ত চরম খারাপ ব্যবহার করছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *