Type to search

গাড়ি নিলামের নামে কোটি টাকা আত্মসাতে অভিযুক্ত এলজিইডি’র কর্মচারি

জেলার সংবাদ

গাড়ি নিলামের নামে কোটি টাকা আত্মসাতে অভিযুক্ত এলজিইডি’র কর্মচারি

অপরাজেয় বাংলা ডেক্স

অকেজো গাড়ি ও যন্ত্রপাতি নিলামের নামে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে বরগুনা এলজিইডি’র এক কর্মচারীর বিরুদ্ধে।

চলতি বছরের শুরুর দিকে কয়েক লাখ টাকার অকেজো গাড়ি ও যন্ত্রপাতি নিলামের সিদ্ধান্ত নেয় এলজিইডি বরগুনা কার্যালয়। নিলাম বাস্তবায়নে জুলাইয়ে গঠিত হয় ৩ সদস্যের কমিটি। এই কমিটির সদস্য কার্যালয়ের মেকানিক্যাল ফোরম্যান বিনয় কুমার বাকি সদস্যদের ম্যানেজ করে গোপনে ভুয়া নিলাম ডাকেন। অফিসের নকল প্যাডে নির্বাহী প্রকৌশলীর সিল ও স্বাক্ষর জাল করে এসব গাড়ি ও যন্ত্রপাতি বিক্রি করে দেন নিজ ভাইয়ের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছে।

নিলামে কিনে নেয়ার ভুয়া সেই কাগজ দেখিয়ে তা আবার বিক্রির প্রস্তাব দেন বিভিন্ন ঠিকাদারের কাছে। এভাবে হাতিয়ে নেন কোটি টাকা।

ভুক্তভোগী ঠিকাদার দেলোয়ার হোসেন সুমন জানান, এ পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে নিলাম বাবদ তাকে ৬৪ লাখ ৭৫ হাজার টাকা দেয়া  হয়েছে। টাকা দেয়ার পরও নিলামের মালামাল বুঝিয়ে দেয়ার কথা বললে আজ দিচ্ছি কাল দিচ্ছি বলে ঘুরাতে থাকে। অফিস পাশ এবং রিট পাশ পাওয়ার পর সে মালামাল অন্যস্থানে বিক্রি করে দিয়েছে।

ঠিকাদার মোহাম্মদ বশির উদ্দীন জানান, একজন সরকারি কর্মচারী এমন প্রতারণা করতে পারে তা আমাদের মাথাতেই আসেনি।

এছাড়া, নিলাম কেলেঙ্কারী ও প্রতারণার অভিযোগ আলোচনায় এলে কয়েক সপ্তাহ ধরে অফিসে অনুপস্থিত থাকেন বিনয় কুমার। তার বিষয়ে কোনও তথ্য দিতে রাজি হয়নি এলজিইডি বরগুনা কার্যালয়ের কোনও কর্মকর্তা।

বিনয় কুমারের স্থলাভিষিক্ত মেকানিক্যাল ফোরম্যান জিয়াউর রহমান বলেন, ‘শুরুতে অসুস্থতার কথা বলে অফিসে অনুপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে দুর্নীতির খবর প্রকাশিত হলে আমাকে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়।’

তদন্ত করে দ্রুত তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন এমনটাই প্রত্যাশা প্রতারণার শিকার ব্যবসায়ীদের।

সূত্র, DBC বাংলা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *