Type to search

রামগড়ে গাড়ি থামিয়ে অস্ত্রের মুখে দু’জনকে অপহরন করেছে ইউপিডিএফ

জাতীয়

রামগড়ে গাড়ি থামিয়ে অস্ত্রের মুখে দু’জনকে অপহরন করেছে ইউপিডিএফ

এফএইচ সুমন,খাগড়াছড়ি জেলা প্রতিনিধিঃ
 খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার রামগড়ে দিনদুপরে প্রকাশ্য রাস্তায় গাড়ি থামিয়ে গাড়িতে থাকা বিপনন কর্মীসহ দুই জনকে অস্ত্রের মুখে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তিবিরোধী সশস্ত্র আঞ্চলিক সন্ত্রাসী সংগঠন ইউপিডিএফ (প্রসীত)’র বিরুদ্ধে।
রবিবার (২৩ আগষ্ট) বেলা ১টার সময় খাগড়াছড়ি-ফেনী সড়কের রামগড়স্থ যৌথখামার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।
পুলিশি সূত্রে জানা যায়, ফেনী হতে খাগড়াছড়ি গামী জুয়েল ট্রেডার্স এর প্লাষ্টিক মালামাল নিয়ে (ফেনী-ন১১-১৪১) একটি পিকাপ গাড়ি রামগড়ের যৌথখামার নামক স্থানে পৌঁছালে ইউপিডিএফ (প্রসীত)’র পিলাক ঘাট সাব পোস্ট কমান্ডার জিএম চাকমার নেতৃত্বে ৩-৪ জনের একটি সশস্ত্র দল গাড়ির গতিরোধ রোধ করে গাড়িতে থাকা মার্কেটিং ম্যানেজার মোঃ মনজুরুল আলম (৩৫) ও মিস্ত্রি রাজু মিয়া (২৭)কে অপহরণ করে বৌদ্ধ পাড়ার দিকে নিয়ে যায়। এসময় অপহরণকারীরা গাড়িটির চাবিও নিয়ে যায়।
রামগড় থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ শামসুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা। ঘটনার বিবরণ মতে অপহৃতদের উদ্ধারে যৌথবাহিনী তৎপরতা শুরু করেছে।
এদিকে গত জুন মাস থেকেই ফেনী-খাগড়াছড়ি সড়কের রামগড়স্থ যৌথ খামার এলাকা, বাজার চৌধুরী পাড়া রাস্তার মাথায় দিন দুপরে গাড়ি আটকে চাঁদা আদায়, রাতের আঁধারে অস্ত্র দেখিয়ে গাড়ি ডাকাতিসহ সপ্তাহের শুক্রবার ও সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঢাকা কলোনী এলাকায় পাশ্ববর্তী সোনাইপুল ও বাগানবাজারে গরু নিয়ে আসা সাধারণ পাহাড়ী-বাঙ্গালী এবং গরুবাহী ট্রাক আটকে মোটা অঙ্কের চাঁদা সংগ্রহের অভিযোগ রয়েছে ইউপিডিএফের বিরুদ্ধে।
স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, ইউপিডিএফের স্থানীয় চাঁদা কালেক্টর সজল ত্রিপুরার নেতৃত্বে ৪-৫জনের একটি সশস্ত্র গ্রুপ দিনদুপরে যৌথখামার, ঢাকা কলোনী ও বাজার চৌধুরী পাড়া রাস্তার মাথায় প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করে চললেও স্থানীয় প্রশাসন এসব দেখেও রহস্যজনক কারণে নিরব। এতে করে ক্ষোভ বেড়েই চলেছে স্থানীয়দের মনে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্র জানায়, চাঁদাবাজি চলাকালীন সময়ে বেশ কয়েকবার প্রশাসনকে এ বিষয়ে অবহিত করা হলেও প্রশাসন এ ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা নেয়নি বরং দিন দিন সন্ত্রাসীদের আধিপত্য বেড়েই চলছে।
এছাড়া অতি সাম্প্রতিক সময়ে খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় সোনামিয়া টিলা ভূমি রক্ষা কমিটির সভাপতি আঃ মালেকের বাড়িতে রাতের আধাঁরে ব্রাশ ফায়ার করে তার স্ত্রীকে হত্যা ও ছেলেখে গুরুতর আহতের পর গত ২১শে আগষ্ট ও ২২ আগষ্ট পরপর দুইদন বাঘাইছড়িতে রাতের আঁধারে সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারের ঘটনায় উদ্গে প্রকাষ করেছেন বিশিষ্টজনেরা।
স্থানীয়রা মনে করছেন, পাহাড়ে যৌথবাহিনীর অভিযান চালিয়ে এসব সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে বিচারের মুখোমুখি করা না গেলে পাহাড়ে স্থায়ী শান্তি ফিরবেনা।
Tags:

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *