Type to search

রাত পোহালেই নওয়াপাড়া পৌরসভায় ভোট

অন্যান্য

রাত পোহালেই নওয়াপাড়া পৌরসভায় ভোট

 

ভোট হবে ইভিএমে

স্টাফ রিপোর্টার:
রাত পোহালেই(২০/৯/২০২১) যশোর জেলার নওয়াপাড়া পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এবারেই প্রথম নয়টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এ পৌরসভায় ৩০টি কেন্দ্রের সবকটিতেই ইভিএমে (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) ভোট হবে।
নির্বাচনে মেয়র পদে ৩জন, ৯টি ওয়ার্ডে সাধারন কাউন্সিলর পদে ৫৫জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১১জন প্রতিদন্ধিতা করছেন বলে জানা গেছে।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, নওয়াপাড়া পৌরসভায় মোট ভোটার ৬৩ হাজার ৩২৭ জন। তার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৩১ হাজার ১৪১ জন, মহিলা ভোটার ৩২ হাজার ১৮৬ জন। ৯টি ওয়ার্ডে ৩০টি কেন্দ্রে ১৮৪টি বুথে ভোট নেয়া হচ্ছে।
ভোটারদের সাথে কথাবলে জানা গেছে, এই প্রথম উপজেলায় ইভিএমে ভোট হওয়ায় ভোটারদের মধ্যে সংশয় ও ভয় কাজ করছে। কারণ ইভিএমের বিষয়ে তাদের কোন ধারণা নেই। ভোটারদের মাঝে ইভিএম সম্পর্কে ধারণা দেওয়ার জন্য গত শনিবার প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে মকভোট সম্পন্ন হয়। কিন্তু মকভোটে ভোটারদের সাড়া মেলেনি। নওয়াপাড়া সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মাত্র ৩জন ভোটার এসেছেন বলে জানান প্রিজাইডিং অফিসার গোমলাম সামদানী। অন্যান্য কেন্দ্রেও মকভোটার উপস্থিতি কম বলে জানা গেছে।
এদিকে জানা গেছে, ৩০টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ২৫টিই ঝুঁকিপূর্ণ। তারমধ্যে ৬টি কেন্দ্র সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। এগুলি হলো নওয়াপাড়া মডেল কলেজ কেন্দ্র, নওয়াপাড়া মহিলা কলেজ কেন্দ্র, নওয়াপাড়া পাইলট বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র, বুইকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র, আলহেলাল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র ও আলহেলাল ইসলামী একাডেমি কেন্দ্র।
ভোটে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ থেকে বর্তমান মেয়র সুশান্ত দাস শান্ত (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এইচ এম মহাসিন শেখ (হাতপাখা) ও জাতীয় পার্টির মো: আলমগীর ফারাজী(লাঙ্গল) প্রতিদ¦›দ্বীতা করছেন।
আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সুশান্ত দাসের পক্ষে দলের সকল নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ। দলের গ্রæপিং লবিং থাকলেও নির্বাচনে নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে এক হয়ে কাজ করায় সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন তিনি। সুশান্ত দাস শান্ত বলেন,‘বিগত সময়ে নওয়াপাড়া পৌরসভায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। জনগণ পৌরবাসী আরও উন্নয়ন দেখতে আমাকে চায়। করোনার সময়ে পৌরবাসির পাশে থেকে সেবা প্রদান করেছি। জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদি।’
অপরদিকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এইচ এম মহসিন শেখের পক্ষের নেতাকর্মীরা নির্বাচনে ইভিএম নিয়ে সংশয় ও শংকায় রয়েছে। তাদের ধারণা নির্বাচনে সরকারদলীয় প্রার্থী প্রশাসনকে ম্যানেজ করে নির্বাচনী ফলাফল তাদের পক্ষে নেবে। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের এইচ এম মহসিন শেখ বলেন,‘তার নেতাকর্মীদের ভয়ভিতি দেখানো হচ্ছে। সাধারণ মানুষ ভোটদিতে ভয় পাচ্ছে। সবাই ভোটদিতে পারলে জয়ের ব্যাপারে আমি আশাবাদি।’
জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো: আলমগীর ফারাজীও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদি বলে জানিয়েছেন। তিনিও তার নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন।
অভয়নগর উপজেলা নির্বাচন কমিশনার মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন,‘ আগামীকালের(আজ) নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ করার সকল প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।’
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মো: আমিনুর রহমান বলেন,‘ অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।’

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *