Type to search

যশোরে উদযাপিত হলো বিশ্ব বাবা দিবস

যশোর

যশোরে উদযাপিত হলো বিশ্ব বাবা দিবস

আবেগ অনুভূতির মধ্য দিয়ে আজ (রবিবার ১৯ জুন) যশোরে বিশ্ব বাবা দিবস উদযাপিত হয়েছে। এদিন বাবা দিবসের আলোচনা সভায় জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেছেন, পৃথিবীতে হাজার হাজার খারাপ মানুষ খুজে পাওয়া যাবে কিন্তু একজনও খারাপ বাবা খুজে পাওয়া যাবে না।

আজকে যিনি বাবা তিনি এক সময় কোন এক বাবার হাত ধরে। আবার আজকে যিনি বাবার হাত ধরে হেটে চলছেন সে একদিন বাবা অথবা মা হবেন। সন্তান হিসাবে আমি অথবা আমারা কতটা সফল সেটা আমাদের চিন্তা করতে হবে। আমরা আসলে শতভাগ সফল বা শতভাগ ভালো এটা হয়তো দাবী করতে পারবো না । কিছু অপূর্ণতা সবারই আছে।

যাদের বাবা মা আছেন তাদের ভেতর যদি এই বাবা দিবসে একটু অনুভূতি আসে যে বাবা মার প্রতি আরও দায়িত্বশীল হতে হবে সেটা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার না করে বাবাকে কাছ থেকে ভালবাসুন শ্রদ্ধা করুন।

তিনি বলেন, আমদের আগের প্রজন্মের বাবা ছিলেন একটু কঠিন রাশভারী তাদের সাথে আসলে শ্রদ্ধা ভালবাসা যায় থাকুক না কেন বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিলো না। কিন্তু বর্তমান প্রজন্মের সন্তানরা ভাগ্যবান তাদের আথে বাবাদের বন্ধুত্বের সম্পর্ক গোড়ে ওঠে খুব সহজে এটা যেমন সত্য ঠিক তেমনি বর্তমানে বাবার প্রতি সন্তানের অবহেলাও লক্ষ্যনিয়। তাই আজ বিশ্ব বাবা দিবসে আমাদের প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে হবে আর কোন বাবা মা যেন রাস্তায় বা বিদ্ধাশ্রমে না থাকে।

‘আজি শুভ দিনে পিতার ভবনে অমৃত সদনে চলো যাই’ স্লোগানে জেলা শিল্পকলা একাডেমির উন্মুক্ত মঞ্চে বিশ্ব বাবা দিবস উদযাপন পর্ষদ যশোরের আয়োজনে বাবা-সন্তানদের সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং বিশেষ চাহিদা সম্পুর্ণ শিশু নিতুন জিরার বাবা শিক্ষক হাবিবুর রহমানকে সম্মাননা দেয়া হয়।

এসময় উদ্বোধনি বক্তব্যে বিশ্ব বাবা দিবস উদযাপন পর্ষদ যশোরের সদস্য সচিব প্রণব দাস বলেন, ভাষা ভেদে শব্দ বদলায়। তবে বদলায় না রক্তের টান। জার্মানিতে যিনি ‘ফ্যাটা’, এই বাংলায় তিনিই ‘বাবা’। শিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায় ও শ্রাবন্তী মজুমদারের গাওয়া ‘কাটে না সময় যখন আর কিছুতে বন্ধুর টেলিফোনে মন বসে না/ জানালার গ্রিলটাতে ঠেকাই মাথা/ মনে হয় বাবার মতো কেউ বলে না/ আয় খুকু আয়, আয় খুকু আয়… কালজয়ী গানটি সন্তানদের এক অসীম নষ্টালজিয়ায় ডুবিয়ে দেয়।

বাবার প্রতি সন্তানের চিরন্তন ভালোবাসার প্রকাশ প্রতিদিনই ঘটে। তারপরও বছরের একটা দিন শুধু বাবার। পৃথিবীর মানুষ বাবার জন্যই রেখে দিতে চায় সেদিন। যেমনটা মায়ের জন্য্য রয়েছে, রয়েছে বাবা-মায়ের জন্য। এবং পরিপ্রেক্ষিতে বাবা দিবসের প্রচলন। এই দিনে পৃথিবীর সব বাবার প্রতি জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা।

অনুষ্ঠানে বিশ্ব বাবা দিবস উদযাপন পর্ষদ যশোরের আহ্ববায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আমিরুল ইসলাম রন্টুর সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন, বিশিষ্ট্য সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হারুন অর রশিদ, জয়তি সোসাইটির নির্বাহী পরিচালক অর্চনা বিশ্বাস, যশোর বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্রাবণী সুর, কবি মাহমুদা রিনি ও কবি শাহরিয়ার সোহেল।

ঢাকারিপোর্ট২৪.কম

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *