Type to search

চৌগাছায় সন্তানদের সাথে অভিমানে একদিনে তিন বৃদ্ধ-বৃদ্ধার আত্মহত্যা!

জেলার সংবাদ

চৌগাছায় সন্তানদের সাথে অভিমানে একদিনে তিন বৃদ্ধ-বৃদ্ধার আত্মহত্যা!

 

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছায় ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে তিন বৃদ্ধ-বৃদ্ধা গলায় রশি দিয়ে ও আগাছা নাশক পানে আত্মহত্যা করেছেন।
শুক্রবার দুপুর থেকে শনিবার দুপুরের মধ্যে উপজেলার তিন ভিন্ন গ্রামে এই আত্মহত্যার প্রচেষ্টা ঘটান এবং শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে শনিবার দুপুরের মধ্যে মারা যান তারা।
পৃথক তিন ঘটনায় আত্মহত্যাকারীরা হলেন উপজেলার জগদীশপুর ইউনিয়নের স্বর্পরাজপুর গ্রামের সাখাওয়াৎ উল্লাহর স্ত্রী মনোয়ারা (৫৫), চৌগাছা পৌরসভার বেলেমাঠ গ্রামের মুদি দোকানী গোলাম মোস্তফা (৬০) এবং উপজেলার নারায়ণপুর ইউনিয়নের হাজরাখানা গ্রামের রতন মল্লিকের ছেলে লোকমান হোসেন (৬০)।
স্থানীয়রা জানান গোলাম মোস্তফা (৬০) চৌগাছা শহরে মুদি দোকানের ব্যবসা করেন। শহরে ন্যাশন্যাল ব্যাংক চৌগাছা শাখা কার্যালয়ের নিচতলায় মার্কেটে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। পরিবারের সদস্যদের সাথে (সন্তানদের) মান-অভিমানের কারনে শুক্রবার তিনি আগাছা নাশক (ঘাস মারা পাউডার) পান করেন। তাকে উদ্ধার করে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার করেন সেখানে রাতে তার মৃত্যু হয়। শনিবার বাদ আছর নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
মনোয়ারার বিষয়ে গ্রামের বাসিন্দারা জানান মনোনয়ারার তিন ছেলে ও দুই মেয়ে। ছেলে মেয়েদের সবারই বিয়ে হয়ে গেছে। তিনি ও তার স্বামাী ছোট ছেলের সাথে থাকেন। সেখানে পারিবারিক কিছু বিষয় নিয়ে মনোমালিন্যের জের ধরে শুক্রবার বিকেলে আগাছা নাশক (ঘাস মারা পাউডার) পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরিবারের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন। সেখান থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে রেফার করেন। সেখানে রাতেই তিনি মারা যান। শনিবার বাদ জোহর নামাজে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
অন্যদিকে হাজারাখানা গ্রামের লোকমান হোসেন শনিবার বেলা দেড়টার দিকে নিজ ঘরের আড়ার সাথে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। তিনিও সন্তানদের উপর অভিমান করে আত্মহত্যা করেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। স্থানীয়রা জানান কিছু দিন আগে তিনি ৬০ লক্ষ টাকার জমি বিক্রি করেন স্থানীয় এক শিল্প প্রতিষ্ঠানের মালিকের কাছে। এই টাকা নিয়ে সন্তানদের সাথে মনোমালিন্য হতে পারে বলে একাধিক প্রতিবেশি জানান।
তবে স্থানীয় ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান মিলনসহ কয়েকজন প্রতিবেশি বলেন লোকমান হোসেন স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগী ছিলেন। তিনি কিছুটা মানষিক বৈকল্যে ভুগছিলেন। তার মাথাও কিছুটা সমস্যা ছিল। এর আগেও তিনি আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিলেন। শনিবার দুপুরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে তিনি নিজ ঘরের আড়ার সাথে গলায় রশি দিয়ে আত্মহত্যা করেন। সংবাদ পেয়ে বিকেল তিনটার দিকে চৌগাছা থানা পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে। এ রিপোর্ট লেখার সময় বিকেল পাঁচটা ১৫ মিনিটেও চৌগাছা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) গোলাম কিবরিয়ার নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছিলেন।
চৌগাছা থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সাইদুর রহমান বলেন হাজরাখানায় ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিম অবস্থান করছে।
চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *